গৌরীশংকর মহাপাত্র : দৈনিক আবেশভূমি: মেদিনীপুর পূর্ব পশ্চিম।গত ৩ রা ডিসেম্বর শনিবার কংগ্রেসের উদ্যোগে আয়োজিত জনসভা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষনা করেছিলেন সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগের কথা শুনতে পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে জনসংযোগ করতে হবে।দিন কাটতে না কাটতে পাড়ায় পাড়ায় জনসংযোগের ছবি ধরা পড়লো পূর্ব মেদিনীপুর

    জেলার কাঁথি সাংগঠনিক জেলার এগরায়। সোমবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এগরা-১এর ছত্রী পঞ্চায়েতের নরহরিপুর গ্ৰামের হীরালাল মাইতি, মতিলাল মাইতি, বাবুলাল দাস, প্রসন্ন প্রামানিক, মদন দাস,গদাধর সামন্তদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগ করেন কাঁথি সাংগঠনিক জেলার তৃনমূল জেলা সভাপতি বিধায়ক তরুন কুমার মাইতি। সঙ্গে ছত্রী পঞ্চায়েত প্রধান অসিত কুমার পয়ড়‍্যা, উপপ্রধান ধনঞ্জয় জানা, পঞ্চায়েত সদস্যা মঞ্জু দাস, অঞ্চল সভাপতি সত‍্যচক্রবর্তীসহ স্থানীয় নেতৃত্বরা।এদিন স্থানীয় দম্পতি রেনুকা ও গদাধর সামন্ত জেলা সভাপতিকে কাছে পেয়ে তাদের অভাব অভিযোগ গুলি তুলে ধরে আবস যোজনায় নাম থাকলেও বাড়ি না
      পাওয়ার কথা বলেন।
      পাড়ায় পাড়ায় চক্বর মেরে কাঁথি সাংগঠনিক জেলা তৃণমূল সভাপতি বিধায়ক তরুন মাইতি জানান- “সাধারন মানুষকে পরিষেবা দিতে আমরা ৩৬৫ দিন এলাকার মানুষের সাথে যোগাযোগ করে চলি। আমাদের নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কাঁথির সভামঞ্চ থেকে ডিসেম্বর মাস জুড়ে আরও নিবিড় ভাবে মানুষের কাছে তৃণমূলে পৌছানো এবং তাদের অভাব অভিযোগ শুনে দ্রুত সমাধানের নির্দেশ দিয়েছেন। সেই নির্দেশ মেনেই এলাকার সাধারণ মানুষ কি কি পরিষেবা পাচ্ছে আর কি কি পাচ্ছেন না তা খতিয়ে দেখা হয়।মূলত আবাস যোজনার বাড়ি না পাওয়ার অভিযোগ বেশি ,কেন পাচ্ছেন না সেগুলি যেমন খতিয়ে দেখা হচ্ছে তেমনি রাজ্য সরকারের ঘোষিত প্রকল্পগুলি ঠিকঠাক পাচ্ছে কি না তাও আমরা খতিয়ে দেখছি।”  এগরা শহর বিজেপির সাংসদ দীলিপ ঘোষের প্রতিনিধি  ছত্রীর প্রাক্তন প্রধান সুকুমার রায় বলেন-“সামনেই পঞ্চায়েত নির্বাচন তাই সাধারণ মানুষকে দেখানোর জন্য এই ধরনে কাজ করে চলেছে বলে কটাক্ষ বিরোধীদের। সারা বছর পরিষেবার কথা না ভেবে ভোটের মুখে নানা ফন্দি পাতার কাজ শুরু করতে চাইছে শাসক তৃণমূল। সাধারণ মানুষ সব দেখছে, সব বুঝে সঠিক সময়ে সঠিক উত্তর দেবে।”

        Share

        Leave a Reply

        Your email address will not be published.